আক্রান্ত ও মৃত্যুর মাঝেও কাদা ছোড়াছুড়ি – দৈনিক গণঅধিকার

আক্রান্ত ও মৃত্যুর মাঝেও কাদা ছোড়াছুড়ি

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২৪ আগস্ট, ২০২৩ | ৭:৫১
চলতি বছর দেশে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে। শুধু আগস্টেই মারা গেছেন ২৫৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ৫০৬ জনে দাঁড়াল। ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৭০ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে সারা দেশে ভর্তি রোগীর সংখা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৬ হাজার ৪২৯ জনে। এদিকে ডেঙ্গুতে দেশজুড়ে আক্রান্ত ও মৃত্যুর মাঝেও মশাবাহিত রোগটি নিয়ন্ত্রণে নিয়োজিত দপ্তরগুলোর মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ নেই। এতদিন স্থানীয় সরকার বিভাগের সঙ্গে স্বাস্থ্য বিভাগের সম্পর্কের টানাপোড়েনের বিষয়টি সামনে না এলেও এখন বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এবার যেন দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যাচ্ছেন নগর কর্তৃপক্ষ ও কীটতত্ত্ববিদরা। সম্প্রতি মশা নিধনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ব্যাসিলাস থুরিনজেনসিস ইসরায়েলেনসিস (বিটিআই) আমদানি করে। তবে উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রয়োগ করা বিটিআই ছাড়াও দুই সিটির প্রচলিত কীটনাশকের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন কীটতত্ত্ববিদরা। অন্যদিকে সিটি করপোরেশনসংশ্লিষ্টরা বলছেন, মশক নিধন কার্যক্রম নিয়ে যারা সমালোচনা করেন, তারা কীটতত্ত্ববিদ নন, বরং ব্যবসায়ী। একদিকে স্থানীয় সরকার বা সিটি করপোরেশন, অন্যদিকে মশা গবেষক বা কীটতত্ত্ববিদ-এ দুই পক্ষের বাইরে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সেবা ব্যবস্থাপনায় তৃতীয় পক্ষের ভূমিকায় রয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। জানতে চাইলে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘দেশে ডেঙ্গু সংক্রমণ না কমার পেছনে মশা নিধনে ব্যর্থতা দায়ী। তাই আমরা যতই রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিই না কেন, মশা না কমলে দেশে ডেঙ্গু রোগীও কমবে না।’ কীটতত্ত্ববিদ ড. মুঞ্জর আহমেদ চৌধুরী বলেন, প্রাকৃতিক কারণে দেশের সব শহর-নগরে জনপদে ডেঙ্গু হচ্ছে, একইভাবে মারা যাচ্ছে। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো ফগিংসহ যেসব কার্যক্রম চলছে, সেগুলো তেমন কার্যকর হচ্ছে না। যেগুলো করা আর না করা সমান। কীটতত্ত্ববিদদের এই দাবিকে প্রত্যাখ্যান করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে প্রয়োগ করা কীটনাশকে কাজ হচ্ছে না। এমন কথা যারা বলছেন, তারা আসলে কীটতত্ত্ববিদ নন। তারা মূলত কীটনাশক বিক্রেতা বা ব্যবসায়ী। আমাদের কার্যক্রম ব্যাহত করতে বিভিন্ন চক্রের উদ্দেশ্যমূলক কার্যক্রম। দেশে ক্রমাগতভাবে বেড়ে চলা ডেঙ্গু পরিস্থিতিতে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার যখন নাজুক অবস্থা, তখন একে অপরকে দোষারোপ না করে সব দপ্তরকে সহযোগিত করা উচিত বলে মনে করে স্বাস্থ্য বিভাগ। স্বাস্থ্য অধিপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, যারা মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ করবেন, তাদের দায়িত্ব আরও অনেক। প্রতিবছর এটি সমন্বিতভাবে চালিয়ে যাওয়া উচিত। এদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে বিশ্বব্যাংক ১০০ মিলিয়ন ডলার দেবে। বিশ্বব্যাংক স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে মশা নিয়ন্ত্রণে এই অর্থায়ন করবে। সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিশ্বব্যাংকের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কী করছে-এমন প্রশ্নের উত্তরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সেবা যতটুকু দেওয়া সম্ভব আমরা দিচ্ছি। হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা অনেক। ইতোমধ্যে ৫০০ মানুষ মারা গেছেন, ১ লাখের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মশা নিয়ন্ত্রণে আসেনি বিধায় এত সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছেন। কাজেই এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে আনা প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে ডেঙ্গু অনেক বেড়েছে, আশপাশের দেশে এত বাড়েনি। কাজেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সেবা দেওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে, সেবা দিচ্ছে, সেবা নিয়ে মানুষ সন্তুষ্ট, কোনো অভিযোগ নেই। কিন্তু মশা না কমলে ডেঙ্গু রোগী কমবে না এবং মৃত্যু কমবে না। এজন্য যার যার দায়িত্ব সেই পালন করে কাজ করলে ভালো হবে। এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন জায়গায় স্প্রে করা প্রয়োজন। এটি আরও জোরদার করতে হবে। সিটি করপোরেশন ও পৌরসভায় এই কাজটি আরও জোরদার করতে হবে, তারা যেন সঠিক ওষুধ ব্যবহার করে। ভেজাল ওষুধ যাতে ব্যবহার না করে। তিন কর্তৃপক্ষের তিন ধরনের মন্তব্যের প্রেক্ষাপটে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশে টালমাটাল ডেঙ্গু পরিস্থিতিতে ঢাকা উত্তর সিটির বিটিআই আশার আলো দেখাচ্ছিল। মশক নিধনে কার্যক্রর হবে বলে এটি ঢাকঢোল পিটিয়ে প্রচারও করা হয়। কিন্তু অনুসন্ধানে দেখা যায়, সিঙ্গাপুর থেকে আমদানি করা বিটিআই আসলে চীনের তৈরি। কীটতত্ত্ববিদদের দাবি, শুধু বিটিআই প্রয়োগ নয়, বছরের পর বছর চলা মশা নিধন কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে সচেতন মহলে। দিনের পর দিন একই ওষুধ প্রয়োগ করায় মশার দেহে সেগুলো কাজ করছে না। এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, ডেঙ্গুতে সবশেষ ভর্তি রোগীদের মধ্যে ঢাকায় ৮৫৭ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলায় ১ হাজার ২১৩ জন। সবশেষ মৃত ১৩ জনের মধ্যে ঢাকায় ৮ জন এবং ঢাকার বাইরে ৫ জন। বর্তমানে সারা দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৭ হাজার ৮২৫ জন রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে ঢাকায় ৩ হাজার ৫৮০ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলায় ৪ হাজার ২৪৫ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানিয়েছে, এ বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ দ্রুত বাড়ছে। জুনে যেখানে ৫ হাজার ৯৫৬ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন, জুলাইয়ে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৪৩ হাজার ৮৫৪ জনে। আর আগস্টের ২৩ দিনে ৫৪ হাজার ৫২৭ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। মাসের হিসাবে জানুয়ারিতে ৫৬৬ জন, ফেব্রুয়ারিতে ১৬৬ জন, মার্চে ১১১ জন, এপ্রিলে ১৪৩ জন, মে মাসে ১ হাজার ৩৬ জন, জুনে ৫ হাজার ৯৫৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। জুনে সারা দেশে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল। জুলাইয়ে ২০৪ জনের মৃত্যু হয়। আগস্টের ২৩ দিনে সেই সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে, এ মাসে মৃত্যু হয়েছে ২৫৫ জনের। জানুয়ারিতে ৬, ফেব্রুয়ারিতে ৩, এপ্রিলে ২, মেতে ২ এবং জুনে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছিল ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে। এ বছর ডেঙ্গুতে ১ লাখ ৬ হাজার ৪২৯ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ৫০৬ জনের। ভর্তি এবং মৃত্যুর এই সংখ্যা অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি। এ বছর এডিস মশা শনাক্তে চালানো জরিপে ঢাকায় মশার যে উপস্থিতি দেখা গেছে, একে ঝুঁকিপূর্ণ বলছেন বিশেষজ্ঞরা। এ অবস্থায় সামনে ডেঙ্গুর প্রকোপ আরও বাড়ার আশঙ্কা করেছেন তারা। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে এ বছর যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের প্রায় সবাই ডেঙ্গু হেমোরেজিক ফিভারে ভুগছিলেন এবং শক সিনড্রোমে মারা গেছেন।

দৈনিক গণঅধিকার সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
সাতক্ষীরায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন খুলনায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা আবেদ আলীর ছেলে সিয়ামকে উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি সঠিকভাবে রোগ নির্ণয় না হওয়ায় দেশের অর্ধেক রোগী বিদেশে চলে যান : স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাদারীপুরে দুই শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু; আটক মা ২ শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যার অপরাধে মধুখালীতে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অপসারণ চন্দনা কমিউটার ট্রেনের স্টপেজ পেলো ফরিদপুর ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লিফটের জন্য ব্যাপক ভোগান্তি পাবিপ্রবিতে কোটা সংস্কার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মশাল মিছিল দৌলতদিয়ায় বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই করছে পদ্মার পানি বালিয়াকান্দিতে স্কুলের সামনে ইজিবাইকচাপায় ছাত্রী নিহত বেনাপোলে ১৮ টি সোনার বারসহ আটক ১ চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে বিজিবির অভিযানে ৮ টি সোনার বারসহ যুবক আটক আবারও কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ ইবি শিক্ষার্থীদের ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে ১৩ কিশোর-কিশোরী বেনাপোল সীমান্তে ৯টি সোনার বারসহ আটক ১ যশোরে ‘জিন সাপ’ আতঙ্ক, হাসপাতালে ভর্তি ১০ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২১৬ কোটি টাকা বেশি রাজস্ব আয় বেনাপোল কাস্টমসে যশোরে সিজার অপারেশন করলেন নাক কান গলার চিকিৎসক কোটা সংস্কারের দাবিতে ফের কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ ইবি শিক্ষার্থীদের