ধীরগতির প্রকল্পে বরাদ্দ কাটছাঁট বিশ্বব্যাংকের – দৈনিক গণঅধিকার

ধীরগতির প্রকল্পে বরাদ্দ কাটছাঁট বিশ্বব্যাংকের

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২২ আগস্ট, ২০২৩ | ৯:০৬ 52 ভিউ
বাজেট সহায়তা দিতে গিয়ে প্রথমবারের মতো বিশ্বব্যাংক চলমান প্রকল্প থেকে অর্থ প্রত্যাহার করেছে। তবে বরাদ্দের পুরো অর্থ প্রত্যাহার করেনি। সাড়ে ১১ শতাংশ তুলে নেওয়া হয়। প্রকল্পের নাম গ্রামীণ সেতু সহায়তা প্রকল্প। এর ফলে বাস্তব কাজের পরিমাণও কমে আসবে। এভাবে অন্তত ৮-৯টি ধীরগতির প্রকল্প থেকে বরাদ্দ কাটছাঁট করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ইআরডির একজন অতিরিক্ত সচিব সোমবার বলেন, এটি প্রত্যাহার করা বুঝায় না। মূলত সাময়িকভাবে তুলে নিলেও ঘুরেফিরে উন্নয়ন কাজেই ব্যবহার হবে। সূত্র জানায়, গ্রামীণ সড়কে সেতু সহায়তা (প্রোগ্রাম ফর সাপোর্টিং রুরাল ব্রিজেস)’ প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে চার হাজার ৯৭১ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে এক হাজার ৫২৫ কোটি ৪০ লাখ এবং বিশ্বব্যাংকের ঋণ থেকে তিন হাজার ৪৪৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ব্যয় করার কথা। এ টাকা থেকে প্রত্যাহার করা হয় ৮ কোটি ৪৬ লাখ ডলার বা প্রায় ৯৩০ কোটি টাকা। যে কারণে এখন প্রকল্পটি সংশোধন করতে হচ্ছে। এক্ষেত্রে কমানো হয়েছে কাজও। এদিকে বিশ্বব্যাংক এ প্রকল্প থেকে টাকা প্রত্যাহার করায় পূর্ত কাজের নতুন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। এজন্য গত ৬ মার্চ ইআরডির মাধ্যমে একটি কর্মপরিকল্পনা বিশ্বব্যাংকের কাছে পাঠানো হয়। এই প্রস্তাব অনুযায়ী বিশ্বব্যাংকের ঋণ থেকে বরাদ্দ কমানো হয়েছে। পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, প্রকল্পটির প্রথম সংশোধিত প্রস্তাব নিয়ে গত ২৬ জুলাই অনুষ্ঠিত হয় প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা। সভায় কয়েকজন কর্মকর্তা প্রশ্ন উত্থাপন করে টাকা প্রত্যাহারের প্রধান কারণ জানতে চান। জবাবে ইআরডির যুগ্মসচিব রেজাউল করিম জানান, মূলত বাজেট সহায়তা দেওয়ায় বিশ্বব্যাংক ধীরগতির প্রকল্প থেকে টাকা তুলে নিয়েছে। অপরদিকে ধীরগতির কারণ সম্পর্কে এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী সেখ মোহাম্মদ মহসিন সভায় বলেন, প্রকল্পটি ২০১৮ সালে শুরু হলেও বাস্তবায়ন অগ্রগতি কম। কেননা ডিসবাসমেন্ট লিংক ইন্ডিকেটর (ডিএলআই) নামক নতুন পদ্ধতি অনুসরণ করে পূর্ত কাজ বাস্তবায়ন করা হয়। অর্থাৎ কাজ অনুযায়ী বরাদ্দ ছাড়। এটি এলজিইডির জন্য নতুন ছিল। ফলে প্রকল্পের শুরুতেই মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা বিষয়টি সম্পূর্ণ আয়ত্ত করে স্কিম তৈরি করতে দেরি করে। এছাড়া ব্রিজের অগ্রাধিকার নির্ধারণেও দেরি হয়। পাশাপাশি ডিজাইন ও রক্ষণাবেক্ষণ পরামর্শক ফার্ম নিয়োগে সময়ভিত্তিক পদ্ধতি অনুসরণ ও কোভিড-১৯ এর কারণে প্রকল্পের বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্ত হয়েছে। প্রশ্নের মুখে নানা প্রস্তাব : পিইসি সভার পক্ষ থেকে ব্যয় বৃদ্ধি নিয়ে মোটা দাগে কয়েকটি প্রশ্ন তোলা হয়। এরমধ্যে রয়েছে প্রকল্পটির পরামর্শক খাতে ১৩৯ কোটি টাকা, ২২টি পরিদর্শন যানবাহন ভাড়ার ব্যয়, আউটসোর্সিং সেবা খাতে ৫৬ কোটি টাকা, ডিএলআই পদ্ধতি যাচাই খাতে সাড়ে ৫ কোটি টাকা এবং কম্পিউটার সফটওয়্যার খাতে প্রায় ৬ কোটি টাকা ব্যয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা বলেন, বাস্তবে এসব বাড়তি ব্যয়ের সঙ্গে অপচয় ও দুর্নীতির যোগসূত্রতা রয়েছে। এ কারণে পিইসি প্রকল্প ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে যৌক্তিক প্রশ্নগুলো সামনে এনেছে। প্রকল্পের বিদেশ প্রশিক্ষণ নিয়েও রয়েছে নানা প্রশ্ন।

দৈনিক গণঅধিকার সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
‘নির্বাচনি প্রিমিয়ার লিগে’ একাই খেলছেন পুতিন কুষ্টিয়ার মঙ্গলবাড়িয়ায় পিতা-পুত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার খোকসায় একাধিক মামলা থাকা সত্ত্বেও চলছে ভেজাল গুড়ের কারখানা খোকসায় চলছে ভেজাল গুড়ের কারখানা আদালত বর্জন বিএনপির আইনজীবীদের রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি: আইনমন্ত্রী বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী কুষ্টিয়ার স্বনামধন্য ইংলিশ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। স্বনামধন্য ইংলিশ প্রতিষ্ঠান CEL এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত ভূ-রাজনীতির ফাঁদে বাংলাদেশ শায়েস্তাগঞ্জ পূজা উদযাপন সাড়ে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ওসির! ইসরাইলের অভিযান নিয়ে যা বললেন পুতিন বেরিয়ে আসছে ব্যাটারদের হতশ্রী চেহারা নিউজিল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটের হার উন্নয়নের কারণে আমরা উন্নত জীবন যাপন করতে পারছি: শিক্ষামন্ত্রী মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণসহ চার অগ্রাধিকার নীতি ঘোষণা চালকের কিস্তি আর সংসারের চাকা ঘুরাল ‘টিম পজিটিভ বাংলাদেশ’ রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়ার পরিণতি ভালো হয় না: ফখরুল পিটার হাসের বক্তব্যের প্রতিবাদে যা বললেন সাংবাদিকনেতারা ‘কোনো চুক্তিতে দেশে ফিরছেন না নওয়াজ শরিফ’ পদার্থে নোবেল পেলেন ৩ জন ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট দমনে কঠোর অবস্থানে সরকার: বাহাউদ্দিন নাছিম