র‍্যাব পরিচয়ে প্রথমে স্ত্রী–সন্তান, পরে ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মুক্তিপণ আদায় – দৈনিক গণঅধিকার

র‍্যাব পরিচয়ে প্রথমে স্ত্রী–সন্তান, পরে ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মুক্তিপণ আদায়

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৫ আগস্ট, ২০২৩ | ১০:২৪ 41 ভিউ
দিনদুপুরে ব্যবসায়ী তৌকির আহমেদের স্ত্রী ও ছেলে-মেয়েকে র‍্যাব পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া যায়। পরে ভয়ভীতি দেখিয়ে একটি জুয়েলার্সে স্বর্ণালংকার রেখে ছেড়ে দেয়। সেদিন রাতে তৌকির বাসায় ফিরলে তাঁকেও ফোনকল করে র‍্যাব পরিচয়ে গেটের সামনে ডেকে নিয়ে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। পরে টর্চার সেলে তিন দিন আটকে রেখে সাড়ে ৬ লাখ টাকায় আদায় করে আবার বাসার গেটে চোখ বেঁধে ছেড়ে দিয়ে যায় অপহরণকারীরা। এ ঘটনায় মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানান ডিএমপির তুরাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুত হাওলাদার। ওসি মওদুত বলেন, র‍্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনায় তুরাগ থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় নাহিদ মাহমুদ (৩৭), মো. রাকিব আহমেদ (৩৮) ও আনোয়ার হোসেন রুহেল ওরফে রুবেল (৪২) নামে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপহরণে ব্যবহৃত একটি হাইচ গাড়িও জব্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে রাবিক আহমেদ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহমেদের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আনোয়ার হোসেন রুহেল কারাগারে এবং নাহিদ মাহমুদ এক দিনের রিমান্ডে রয়েছেন। ঘটনার বর্ণনায় জানা যায়, তুরাগে রাজউক উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রজেক্টের (রোয়াপ) ১৮ নম্বর সেক্টরের ১৫ /এ কৃষ্ণচূড়া ভবনের ১১০৬ নং ফ্ল্যাট থেকে গত ৫ আগস্ট বিকেলে ব্যবসায়ী তৌকির আহমেদের স্ত্রী ও দুই সন্তানকে (১২ বছরের মেয়ে ও ৫ বছরের ছেলে) এবং রাত ১১টার দিকে ভবনের গেটের সামনে থেকে তৌকির আহমেদকে অপহরণ করা হয়। তিন দিন আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায়ের পর ৮ আগস্ট বেলা সাড়ে ৩টার দিকে চোখ বাঁধা অবস্থায় বাসভবন রোয়াপের এক নম্বর গেটের সামনে রেখে চলে যায়। ভুক্তভোগী চিকিৎসা শেষে গত ১১ আগস্ট রাতে তুরাগ থানায় সরকারি কর্মচারী পরিচয়ে অপহরণ করে চাঁদা আদায় এবং অবৈধভাবে আটক করে মারধরের অভিযোগে মামলা করেন। মামলার পরদিন ১৮ নম্বর সেক্টর থেকে রাকিবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরের দিন ১২ আগস্ট পুলিশ তাঁকে আদালতে পাঠালে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এদিকে ১৩ আগস্ট রাজধানীর শেরে বাংলা নগরের শুক্রাবাদ এলাকা থেকে রাত আড়াইটার দিকে অভিযান চালিয়ে অপহরণ চক্রের মূল হোতা নাহিদ মাহমুদ (৩৭) ও সহযোগী আনোয়ার হোসেন রুহেল ওরফে রুবেলকে (৪২) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে ১৪ আগস্ট আদালতে পাঠানো হলে নাহিদ মাহমুদের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয় এবং রুবেলকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী তৌকির আহমেদ বলেন, ‘র‍্যাব পরিচয়ে প্রথমে বাসা থেকে আমার স্ত্রী-সন্তানদের তুলে নিয়ে যায়। পরে সন্তানদের রাজলক্ষ্মী এলাকায় রেখে আমার স্ত্রীকে আজমপুরের আমির কমপ্লেক্সের একটি স্বর্ণের দোকানে নিয়ে তাঁর ২টি চেইন ও এক জোড়া কানের দুল সেখানে বন্ধক রেখে এক লাখ টাকা আদায় করে ছেড়ে দেয়। রাতে আমি বাসায় ফেরার পর তাঁদের একজন এসে র‍্যাবের পদবির আইডি কার্ড দেখায় এবং আমাকে বলে, “আমরা র‍্যাব সদর দপ্তর থেকে এসেছি, আপনাকে কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে। তাই আপনাকে আমাদের সঙ্গে র‍্যাব সদর দপ্তরে যেতে হবে। ” এই বলেই গাড়িতে তুলে চোখ বেঁধে আমাকে শুক্রাবাদের একটি টর্চার সেলে নিয়ে যায়। সেখানে নাহিদ মাহমুদ নিজেকে সিনিয়র মেজর পরিচয় দেন এবং র‍্যাব-২ (বছিলা) সদস্য কনস্টেবল মাজেদুল ইসলাম নিজেকে মেজর খালেক পরিচয় দেন।’ তৌকির আহমেদ বলেন, ‘আমাকে আটকে রেখে নির্যাতন করে আমার সঙ্গে থাকা ১৫ হাজার টাকা, মোবাইল ব্যাংকিংয়ে থাকা ১৮ হাজার ও ব্যাংকের এটিএম বুথে থাকা ৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা নিয়ে নেয়। পরে আরও ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করলে প্রবাসে থাকা এক বন্ধুর কাছ থেকে ব্যাংকের অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ২ লাখ টাকা এনে দিলে তারা ছেড়ে দেয়।’ তৌকির বলেন, পুলিশ গ্রেপ্তারের পর জানা যায়, নাহিদ মাহমুদ মেজর নন, তিনি স্থানীয় যুবলীগ নেতা। অন্যদিকে মেজর খালেক পরিচয়দানকারী র‍্যাব-২-এর কনস্টেবল মাজেদুল ইসলাম। পরে সবাইকে থানা-পুলিশ নিয়ে এলেও কনস্টেবল মাজেদুলকে র‍্যাব-২ রেখে দিয়েছে। অপহরণের সময় মোবাইল ফোনে সক্রিয় লোকেশন ট্র্যাকার এক বন্ধুকে শেয়ার করেছিলেন তিনি। ফলে তাঁকে শুক্রাবাদেই নেওয়া হয়েছিল এটি তিনি পরে নিশ্চিত হতে পেরেছেন। অপহরণের কারণ সম্পর্কে কিছু জানা গেছে কি না জানতে চাইলে ওসি মওদুত হাওলাদার বলেন, ‘তৌকিরের বন্ধু মুশফিকের সঙ্গে জনৈক ব্যক্তিকে বিদেশে পাঠানোর ভিসাসংক্রান্ত ব্যাপারে টাকা লেনদেন ছিল। ওই ব্যক্তির হয়ে অপহরণকারীরা তৌকিরকে তুলে নিয়েছিল।’ তিনি বলেন, ‘অপহরণের দিনই হাইচ গাড়িটি পাঁচ হাজার টাকায় ভাড়া করা হয়েছিল উত্তরা থেকে। অপহরণের কাজের পর গাড়িটি বগুড়া চলে গিয়েছিল, এরপর ঢাকায় এলে গাড়িটি জব্দ করা হয়।’ র‍্যাব সদস্য জড়িত থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি মওদুত বলেন, ‘আমরা বিষয়টি নজরদারিতে রেখেছি। খাতা কলমে এখনো পাইনি, পেলে জানাব।’ অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে র‍্যাব-২-এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) শিহাব করিম বলেন, ‘তুরাগে ওই ঘটনার বিষয়ে আমার কিছুই জানা নেই। আপনি তুরাগসংশ্লিষ্ট যাঁরা আছেন, তাঁদের সঙ্গে কথা বলেন।’

দৈনিক গণঅধিকার সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
‘নির্বাচনি প্রিমিয়ার লিগে’ একাই খেলছেন পুতিন কুষ্টিয়ার মঙ্গলবাড়িয়ায় পিতা-পুত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার খোকসায় একাধিক মামলা থাকা সত্ত্বেও চলছে ভেজাল গুড়ের কারখানা খোকসায় চলছে ভেজাল গুড়ের কারখানা আদালত বর্জন বিএনপির আইনজীবীদের রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজি: আইনমন্ত্রী বৃহস্পতিবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী কুষ্টিয়ার স্বনামধন্য ইংলিশ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। স্বনামধন্য ইংলিশ প্রতিষ্ঠান CEL এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত ভূ-রাজনীতির ফাঁদে বাংলাদেশ শায়েস্তাগঞ্জ পূজা উদযাপন সাড়ে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ওসির! ইসরাইলের অভিযান নিয়ে যা বললেন পুতিন বেরিয়ে আসছে ব্যাটারদের হতশ্রী চেহারা নিউজিল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটের হার উন্নয়নের কারণে আমরা উন্নত জীবন যাপন করতে পারছি: শিক্ষামন্ত্রী মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণসহ চার অগ্রাধিকার নীতি ঘোষণা চালকের কিস্তি আর সংসারের চাকা ঘুরাল ‘টিম পজিটিভ বাংলাদেশ’ রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়ার পরিণতি ভালো হয় না: ফখরুল পিটার হাসের বক্তব্যের প্রতিবাদে যা বললেন সাংবাদিকনেতারা ‘কোনো চুক্তিতে দেশে ফিরছেন না নওয়াজ শরিফ’ পদার্থে নোবেল পেলেন ৩ জন ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট দমনে কঠোর অবস্থানে সরকার: বাহাউদ্দিন নাছিম