৮৫ হাজার কোটি টাকার খেলাপি ঋণ আটকে আছে মামলায় – দৈনিক গণঅধিকার

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য

৮৫ হাজার কোটি টাকার খেলাপি ঋণ আটকে আছে মামলায়

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২৫ মে, ২০২৪ | ৫:০৯
সরকারি ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রায় ৮৫ হাজার কোটি টাকার খেলাপি ঋণ আটকে গেছে বিভিন্ন ধরনের মামলায়। এর বেশির ভাগই অর্থ ঋণ ও সার্টিফিকেট মামলা। এ ছাড়া রিট করেও ঋণ পরিশোধ আটকে রাখা হয়েছে। আদালতে আটকে থাকা মামলাগুলোর মধে কোনো কোনোটি চলছে বছরের পর বছর। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেও এসব ঋণ আদায় করতে পারছে না ব্যাংকগুলো। ব্যাংকিং খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বছরের পর বছর ধরে মামলা নিষ্পত্তি না হওয়ায় ব্যাংকের টাকা আটকে থাকছে। এতে কমে যাচ্ছে ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণের সক্ষমতা। নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে দেশের অর্থনীতিতে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী চলতি বছরের মার্চ শেষে সরকারি ছয় বাণিজ্যিক ব্যাংকের মামলাকৃত খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৮৫ হাজার ২১৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে সোনালী ব্যাংকের ২৫ হাজার ৮ কোটি, জনতা ব্যাংকের ২১ হাজার ৫৭৮ কোটি, অগ্রণী ব্যাংকের ১৩ হাজার ৫১২ কোটি, রূপালী ব্যাংকের ৮ হাজার ১১ কোটি, বিডিবিএলের ২ হাজার ৭৯৪ কোটি ও বেসিক ব্যাংকের ১৪ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২২ সালের ডিসেম্বর শেষে এ ছয় ব্যাংকের আদালতের মামলায় আটকে থাকা খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৭৭ হাজার ৩০৪ কোটি টাকা। মামলা কমিয়ে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তির মাধ্যমে খেলাপি ঋণের অর্থ আদায়ের তাগিদ থাকলেও দেখা যাচ্ছে, সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মামলার সংখ্যা, বাড়ছে আটকে থাকা অর্থের পরিমাণ। জানা গেছে, ভালোভাবে খোঁজখবর না নিয়ে ঋণ দেওয়ার কারণে অনেক সময় ঋণের বিপরীতে পর্যাপ্ত জামানত পাওয়া যায় না। কোনো কোনো ঋণগ্রহীতা একই জামানত বারবার ভ্যালু অ্যাড করে অতিরিক্ত মূল্য দেখায়। আবার মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভুয়া দলিলপত্র ও ডকুমেন্ট দেখিয়েও ঋণ নেওয়ার ঘটনা ঘটছে। এরপর যখন ঋণ খেলাপি হয়ে যায়, তখন আদায় করতে গিয়ে ঋণের আসলও আদায় করা যায় না। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান আবার ঋণ পরিশোধ না করার জন্য প্রতিষ্ঠান দেউলিয়া ঘোষণা করে। আবার ঋণগ্রহীতা মারা গেলেও উত্তরাধিকার ঋণ পরিশোধ করতে চায় না। এসব কারণে খেলাপি ঋণ আদায়ে মামলার সংখ্যা বাড়ছে। অগ্রণী ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত গণঅধিকারকে বলেন, দীর্ঘসূত্রতার কারণে অনেক মামলা বছরের পর বছর ঝুলে আছে। এর ওপর নতুন মামলা হচ্ছে। অনেক ঋণগ্রহীতা টাকা ফেরত না দেওয়ার জন্য আদালতে রিট করে টাকা আটকে রাখেন। এ কারণে মামলায় আটকা খেলাপি ঋণের পরিমাণ বাড়ছে। এটি শুধু সরকারি ব্যাংক নয়, বেসরকারি ব্যাংকেও একই ঘটনা ঘটছে বলে উল্লেখ করেন বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস)-এর এই গবেষক। সূত্র জানায়, আদালতের মাধ্যমে খেলাপি ঋণের অর্থ আদায় প্রক্রিয়ায় দীর্ঘসূত্রতার কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংক আলাপ-আলোচনা অর্থাৎ বিরোধ নিষ্পত্তি (এডিআর)-এর মাধ্যমে খেলাপি আদায়ে জোর দিচ্ছে। গত ১২ মে বাংলাদেশ ব্যাংক এক নির্দেশনায় বলেছে, ব্যাংকের ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে শুধু মামলা না করে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি (এডিআর)-এর মাধ্যমে ঋণ আদায় করতে হবে। এজন্য একটি লক্ষ্যমাত্রাও বেঁধে দিয়েছে আর্থিক খাতের এ নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বলা হয়েছে, ২০২৬ সালের ৩০ জুনের মধ্যে প্রত্যেক ব্যাংকের খেলাপি ঋণ স্থিতির ন্যূনতম ১ শতাংশ নগদ আদায় এডিআরের মাধ্যমে করতে হবে। এ লক্ষ্যমাত্রা নিশ্চিত করতে ব্যাংকগুলোর সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতেও নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। জায়েদ বখত বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের এ নির্দেশনাটি সাম্প্রতিক কালের। এটি বাস্তবায়নে সময় লাগবে। এ ছাড়া ব্যাংকগুলো তখনই মামলায় যায়, যখন গ্রাহক নানা অজুহাতে টাকা ফেরত দিতে চায় না। আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে টাকা ফেরত দেওয়ার সুযোগ থাকলে ব্যাংক কখনো মামলায় যায় না।

দৈনিক গণঅধিকার সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
সাতক্ষীরায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন খুলনায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা আবেদ আলীর ছেলে সিয়ামকে উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি সঠিকভাবে রোগ নির্ণয় না হওয়ায় দেশের অর্ধেক রোগী বিদেশে চলে যান : স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাদারীপুরে দুই শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু; আটক মা ২ শ্রমিককে পিটিয়ে হত্যার অপরাধে মধুখালীতে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অপসারণ চন্দনা কমিউটার ট্রেনের স্টপেজ পেলো ফরিদপুর ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লিফটের জন্য ব্যাপক ভোগান্তি পাবিপ্রবিতে কোটা সংস্কার দাবিতে শিক্ষার্থীদের মশাল মিছিল দৌলতদিয়ায় বিপৎসীমা ছুঁই ছুঁই করছে পদ্মার পানি বালিয়াকান্দিতে স্কুলের সামনে ইজিবাইকচাপায় ছাত্রী নিহত বেনাপোলে ১৮ টি সোনার বারসহ আটক ১ চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে বিজিবির অভিযানে ৮ টি সোনার বারসহ যুবক আটক আবারও কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ ইবি শিক্ষার্থীদের ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরেছে ১৩ কিশোর-কিশোরী বেনাপোল সীমান্তে ৯টি সোনার বারসহ আটক ১ যশোরে ‘জিন সাপ’ আতঙ্ক, হাসপাতালে ভর্তি ১০ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২১৬ কোটি টাকা বেশি রাজস্ব আয় বেনাপোল কাস্টমসে যশোরে সিজার অপারেশন করলেন নাক কান গলার চিকিৎসক কোটা সংস্কারের দাবিতে ফের কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ ইবি শিক্ষার্থীদের